প্রিয় পাঠক আজকে আমরা ইন্টিগ্রেটেড সার্কিট (IC) আইসি সম্পর্কে বেসিক কিছুটা ধারণা নিবো। আমরা কেন আইসি ব্যবহার করি এটি ব্যবহার করলে সুবিধা কি ইত্যাদি ইত্যাদি বিষয়ে জানবো।

IC এর পূর্ণ অর্থ ইন্টিগ্রেটেড সার্কিট অর্থাৎ বড় একটি সার্কিটের বিশেষ সংক্ষিপ্ত রুপ। দেখতে চ্যাপটা, ছোট, কালো বা ধুসর বর্ণের অনেকগুলো পিনযুক্ত। একটি আইসির মধ্যে এক বা একাধিক একই ধরনের অ্যাকটিভ ও প্যাসিভ কম্পোনেন্ট বসানো যায়। সুতরাং বলা যায় আইসি এমন একটি সার্কিট যার মধ্যে একাধিক অ্যাকটিভ ও প্যাসিভ কম্পোনেন্ট একটি ছোট চিপ এর মধ্যে বসানো থাকে এবং যাদের অভ্যন্তরীণ সংযোগের ফলে সম্পূর্ণ ইলেকট্রনিক সার্কিট তৈরি হয়। এটির আকার ০.২ মিমি* ০.২ মিমি *০.০০১ মিমি হয়।

আইসি ব্যবহারের সুবিধাঃ

  • কোন প্রকার সোল্ডার জয়েন্ট না থাকায় Reliability ভাল পাওয়া যায়।
  • তাপমাত্রা অধিক হলে ও অন্য সার্কিট হতে ভালো কাজ করে।
  • পাওয়ার লস কম হয়।
  • অনেকগুলো কম্পোনেন্ট কে একই Chip এর উপর বসানো হয় বিধায় এর আকার ছোট হয়।
  • এর ওজন তুলনামূলক ভাবে কম হয়।
  • এটি তৈরিতে কম খরচ হয়।
  • এতে Soldering এর প্রয়োজনীয়তা অনেকটা কম হয়।
  • জটিল সার্কিট তৈরি করেও ভালো পারফরমেন্স পাওয়া যায়।
  • একটি সার্কিটের বিভিন্ন Component মধ্যবর্তী তাপমাত্রার পার্থক্য কম।
  • Component গুলোর Matching Close হয়।

আইসি এর অসুবিধা বা সীমাবদ্ধতাঃ

  • এতে কোন একটি Component নষ্ট হলে সমস্ত IC পরিবর্তন করতে হয়।
  • IC এর মধ্যে তৈরিকৃত ক্যাপাসিটর ও রেজিস্টরের সংখ্যা সীমিত।
  • ক্যাপাসিটর ও রেজিস্টরের টলারেন্স কম।
  • ইন্ডাক্টর ও Transformer ফেব্রিকেট করা যায় না।
  • প্রত্যেকটি Component এর মধ্যে Isolation তৈরি হয় তার জন্য High Frequency Response পাওয়া যায় না।
  • লো পাওয়ার পর্যন্ত আইসি তৈরি করা যায়।
  • Saturation অবস্থায় ট্রানজিস্টর এর রেজিস্ট্যান্স বেশি হয়।
  • হাই ভোল্টেজে অপারেশন করানো যায় না।
  • Noise কম পাওয়া জটিল।
  • High Grade PNP Unit সহজে তৈরি করা যায়না।

আইসি এর অনস্বীকার্য বিষয়ঃ

  1. একটি আইসিতে বিভিন্ন কম্পোনেন্ট গুলো একটি ছোট সেমিকন্ডাক্টর চিপ এর স্বয়ংক্রিয় অংশ এবং আলাদাভাবে কোন কম্পোনেন্টকে সরানো যায় না।
  2. এর আকার এতই ছোট যে এর কম্পোনেন্ট এর মধ্যকার সংযোগ দেখার জন্য মাইক্রোস্কোপ এর প্রয়োজন হয়।
  3. সমস্ত কম্পোনেন্ট গুলো একটি চিপ এর মধ্যে ফর্ম করে বলে আইসি এর কোন কম্পোনেন্ট চিপ এর সার্ফেস এ দেখা যায় না।

স্ট্যান্ডার্ড প্রিন্টেড সার্কিটের তুলনায় আইসিসমূহের সুবিধাঃ

  1. আইসি ডিসক্রিট সার্কিটের তুলনায় আকারে হাজার গুন ছোট।
  2. যেহেতু উৎপাদনকারীগণ অনেক সার্কিটে আইসি প্যাকেজে গঠন করে, ফলে সার্কিটের ওজন হ্রাস পায়।
  3. একই সময়ে হাজার হাজার আইসি একই ওফারে গঠন করা হয় বলে নির্মাণ খরচ কম।
  4. আইসিতে আন্তঃ সংযোগ থাকায় সোল্ডারিং এর সমস্যা থাকে না।
  5. আইসিতে বিভিন্ন কম্পোনেন্ট খুব কাছাকাছি থাকে তাই স্ট্রে-ইলেকট্রিক্যাল সিগন্যালের জন্য ইনপুটে খুব কম পরিবর্তন ঘটে।
  6. ছোট আকারের কারণে আইসি কম পাওয়ার খরচ করে।
  7. আইসি খারাপ হলে তা সহজে প্রতিস্থাপন (রিপ্লেস)  করা যায়।

আইসি এর পরিমাপসমূহ চিহ্নিতকরণ

  • 1951= DT (Discrete Transistor)
  • 1960= SSI (Small Scale Integration): যাতে ১০০ এর চেয়ে কম কম্পোনেন্ট থাকে।
  • 1966= MSI (Medium Scale Integration): যাতে ১০০ থেকে ৯৯৯ এর মধ্যে কম্পোনেন্ট থাকে।
  • 1969= LSI (Large Scale Integration): যাতে ১০০০ থেকে ৯৯৯৯ এর মধ্যে কম্পোনেন্ট থাকে।
  • 1975= VLSI (Very Large Scale Integration): যাতে ১০০০০ থেকে ৯৯৯৯৯ এর মধ্যে কম্পোনেন্ট থাকে।
Facebook Comments