আইসি টেকনোলজি মাইক্রোইলেকট্রনিক্স এর গঠন করে। তাই মাইক্রোইলেকট্রনিক্স প্রযুক্তি বিদ্যাকে তিনটি শাখায় বিভক্ত করা যায়। যথাঃ- মিনি ডিস্ক্রিট ডিভাইস সমূহ, ফাংশনাল ডিভাইস সমূহ, ইন্টিগ্রেটেড সার্কিট সমূহ।
ফাংশনাল ডিভাইস সমূহ ইলেকট্রিক্যাল ফিল্টারের সমন্বয়ে গঠিত এগুলো দ্বারা কিছু সংখ্যক ব্যান্ডকে অতিক্রম করানো হয়। ইন্টিগ্রেটেড ডিভাইস সমূহকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়। যথাঃ- হাইব্রিড সার্কিট, প্যাসিভ ফিল্ম সার্কিট, অ্যাকটিভ এবং প্যাসিভ সিলিকন মনোলিথিক সার্কিট
প্যাসিভ সার্কিট থিক ফিল্ম সার্কিট অথবা থিক ফিল্ম সার্কিট হতে পারে। হাইব্রিড সার্কিট রেজিস্টর এবং ক্যাপাসিটরের সমন্বয়ে গঠিত।
ফাংশন অনুসারে আইসিসমূহকে আবার দুই ভাগে ভাগ করা যায়। যথাঃ- লিনিয়ার আইসি, এবং ডিজিটাল আইসি।

লিনিয়ার আইসি সমূহ সাধারণত অ্যানালগ সার্কিটের ফাংশন সম্পাদন করে। বিভিন্ন প্রকার প্রয়োগ অনুসারে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এ সকল আইসি ডিজাইন করে থাকে। যেমন- BEL CA 3020 মাল্টিপারপাজ ওয়াইড ব্যান্ড পাওয়ার অ্যামপ্লিফায়ার BEL CA 3065 মাল্টিস্টেজ আইএফ অ্যামপ্লিফায়ার এর কথা উল্লেখযোগ্য।
ডিজিটাল আইসি সমূহ বিভিন্ন প্রকার লজিক্যাল ফাংশন সম্পাদনে ব্যবহার করা হয়। উদাহরণস্বরূপ 74LS00, 74L5373 এর কথা উল্লেখযোগ্য।

লিনিয়ার ইন্টিগ্রেটেড সার্কিট সমূহকে আবার মিলিটারি, ইন্ডাস্ট্রিয়াল এবং অ্যাপ্লিকেশন অনুসারে নিম্নোক্ত উপায়ে ভাগ করা যায়। যথাঃ-

  • অপারেশনাল অ্যামপ্লিফায়ার,
  • স্মল- সিগনাল অ্যামপ্লিফায়ার,
  • পাওয়ার অ্যামপ্লিফায়ার,
  • RF এবং IF অ্যামপ্লিফায়ার,
  • মাইক্রোওয়েভ অ্যামপ্লিফায়ার,
  • মাল্টিপ্লায়ার,
  • ভোল্টেজ কম্পারেটর, এবং
  • ভোল্টেজ রেগুলেটর ইত্যাদি।

বিভিন্ন প্রকার লিনিয়ার ইন্টিগ্রেটেড সার্কিটকে আবার বিভিন্ন শ্রেণীতে ভাগ করা যায়। এক্ষেত্রে এই সকল শ্রেণীসমূহ তাদের নাম্বারের পশ্চাতে ব্যবহৃত হয়। যেমন-

  • 741:- মিলিটারি গ্রেড অপারেশনাল অ্যামপ্লিফায়ার,
  • 741C:- বাণিজ্যিক গ্রেডে অপারেশনাল অ্যামপ্লিফায়ার,
  • 741 A- 741:- এর উন্নত সংস্করণ,
  • 741 E-741 C :- এর উন্নত সংস্করণ
  • 741S:- উচ্চতর স্লিউরেট সম্বলিত মিলিটারি গ্রেড এবং
  • 741SE:- উচ্চতর স্লিউরেট সম্বলিত বাণিজ্যিক গ্রেড ইত্যাদি।

অ্যানালগ ও ডিজিটাল আইসিঃ

অ্যানালগ আইসিঃ যেসকল আইসি এর সাহায্যে অ্যানালগ অপারেশন যেমন- অসিলেশন, মডুলেশন, ডিটেকশন ইত্যাদি কাজ সম্পাদন করা যায় তাকে অ্যানালগ আইসি বলা হয়। যেমন- CA 710, TDA 2030, ZN 415 ইত্যাদি।

ডিজিটাল আইসিঃ যে সকল আইসি এর সাহায্যে ডিজিটাল অপারেশন করা যায় যেমন- গাণিতিক এবং যুক্তিভিত্তিক কাজ সম্পাদন করা হয় তাকে ডিজিটাল আইসি বলা হয়। যেমন- 74LS00, 74ST81, 4000A ইত্যাদি।

ডিজিটাল IC এর শ্রেণিবিভাগ

  • রেজিস্টর ট্রানজিস্টর লজিক IC
  • ডায়োড ট্রানজিস্টর লজিক IC
  • টানজিস্টর ট্রানজিস্টর লজিক IC
  • ইমিটার কাপলড লজিক IC
  • ইন্টিগ্রেটেড ইনজেকশন লজিক IC
  • হাই থ্রেসহোল্ড লজিক IC
  • পি মসফেট IC
  • এন মসফেট IC এবং
  • সি মসফেট IC ইত্যাদি।
Facebook Comments