রেসিপ্রোকেটিং পাম্প কি | Reciprocating Pump | পাম্প কাকে বলে

0
88
রেসিপ্রোকেটিং পাম্প

যান্ত্রিক উপায়ে কোন এক স্থানের পানি বা তরল পদার্থকে আকর্ষণ করে অন্য স্থানে প্রেরণ করার নাম পাম্পিং বা পাম্প করা এবং যে যন্ত্রের সাহায্যে এই কাজ করা হয়, তাকে বলে পাম্প। অর্থাৎ যে যন্ত্র বাহ্যিক শক্তি দ্বারা চালিত হয়ে চাপ সৃষ্টি করে কোন প্রবাহীকে এক তল হতে অন্য তলে স্থানান্তর করে তাকে পাম্প বলে। পাম্পের কার্যের নামই পাম্পিং। রেসিপ্রোকেটিং পাম্প

চাপ মাত্রার পার্থক্য সৃষ্টির জন্য শ্রেণিভেদে পাম্প কেসিং এর অভ্যন্তরে পিস্টন বা প্লাঞ্জার বা ইস্পেলার বা গিয়ার বা স্ক্রু থাকে। উল্লেখিত যন্ত্রাংশগুলো যখন বৈদ্যুতিক মোটর বা ইঞ্জিন দ্বারা চালিত হয়, তখন তরল পদার্থ চাপ প্রাপ্ত হয়ে এক স্থান হতে অন্য স্থানে স্থানান্তরিত হয়। বর্তমান বিশ্বে, আধুনিক সমাজ ব্যবস্থায়য় পাম্পের গুরুত্ব অপরিসীম। পানি সরবরাহ ব্যবস্থায় পাম্প একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে।

পাম্প কাকে বলে?
যে যন্ত্র বাহ্যিক শক্তি দ্বারা চালিত হয়ে চাপ সৃষ্টি করে কোন প্রবাহীকে এক তল হতে অন্য তলে স্থানান্তর করে তাকে পাম্প বলে।

একটি পাম্প তিনটি অংশের সমন্বয়ে গঠিত। যথাঃ
(ক) সাকশন পাইপ বা শোষক নল,
(খ) বডি বা দেহ
(গ) ডেলিভারি পাইপ বা প্রেরক নল।

দেহ অংশটিং একদিকে আকর্ষক নল এবং অন্যদিকে প্রেরক নল সংযুক্ত থাকে। দেহমধ্যস্থ সাজসরঞ্জাম বা যন্ত্রপাতির সাহায্যে পানি আকর্ষক নলের মধ্য দিয়ে দেহে আসে এবং সেখান হতে প্রেরক নল দিয়ে বাইরে নিক্ষিপ্ত হয়।

রেসিপ্রোকেটিং পাম্প এর অর্থঃ

যে পাম্প পানি অথবা তরলকে পিস্টন অথবা প্লাঞ্জেরর ডিসপ্লেসমেন্ট দ্বারা নিম্ন উচ্চতা থেকে অধিক উচ্চতায় উঠায় তাকে Reciprocating Pump বলে।

রেসিপ্রোকেটিং পাম্পের মূলনীতিঃ

এ পাম্প একটি পিস্টন সংযোগকারী দন্ড দ্বারা একটি চাকার সাথে যুক্ত থাকে। এ চাকাটিকে ফ্লাই হুইল বলে। চাকাটিকে ঘুরালে পিস্টনটি চোঙাকৃতি দেহের মধ্যে সংযোগকারী দন্ডের সাহায্যে আগে-পিছে চলাচল করতে পারে। প্রথম বহির্মুখী বা পশ্চাদমুখী স্ট্রোকে এটি পিছনে আসে। তখন চোঙাকৃতি দেহের মধ্যে শূন্যস্থানের সৃষ্টি এবং সাথে সাথে পানি আকর্ষক পাইপ হতে দেহে এসে জমা হয়। পরবর্তী স্ট্রোকে অর্থাৎ অন্তর্মুখী বা অগ্রাভিমুখী স্ট্রোকের পিস্টনটি সম্মুখে এসে ঐ পানিকে নির্গমন পথ দিয়ে সজোরে বের করে দেয়।

এভাবে এক স্ট্রোকে শূন্যস্থান সৃষ্টি ও দেহের মধ্যে পানির প্রবেশ এবং পরবর্তী স্ট্রোকে দেহ হতে পানি নির্গমন হলে তাকে সিঙ্গেল অ্যাকটিং পাম্প বলে। কিন্তু পাম্পের দেহে ভালভ-এর সংখ্যা বৃদ্ধি ও বিন্যাস করে প্রতি স্ট্রোকেই পানির আকর্ষণ ও নির্গমন সম্ভব হলে তাকে ডাবল অ্যাকটিং পাম্প বলে।

রেসিপ্রোকেটিং পাম্পের শ্রেণিবিভাগ

  • পিস্টন বা প্লাঞ্জারের এক পার্শ্ব বা উভয় পার্শ্বের তরলের কন্টাক্ট অনুযায়ী রেসিপ্রোকেটিং পাম্পকে দুইভাবে ভাগ করা যায়ঃ- (ক) সিঙ্গেল অ্যাকটিং পাম্প (খ) ডাবল অ্যাকটিং পাম্প।
  • সিলিন্ডারের সংখ্যা অনুসারে নিম্নলিখিতভাবে ভাগ করা যায়ঃ (ক) সিঙ্গেল সিলিন্ডার পাম্প (খ) ডাবল সিলিন্ডার পাম্প (গ) ট্রিপল সিলিন্ডার পাম্প (ঘ) ডুপ্লেক্স ডাবল সিলিন্ডার পাম্প (ঙ) কুইনটুপ্লেক্স সিলিন্ডার পাম্প।
  • এয়ার ভেসেলের অস্তিত্ব অনুযায়ী দুই প্রকার। (ক) এয়ার ভেসেল যুক্ত পাম্প (খ) এয়ার ভেসেলহীন পাম্প।

রেসিপ্রোকেটিং পাম্পের গঠন

  1. পিস্টন বা প্লাঞ্জারঃ এটি সিলিন্ডারের মধ্যে মুভ করে।
  2. সিলিন্ডারঃ এটির মধ্যে পিস্টন মুভ করে এবং সাকশনস্ট্রোকে পানি প্রবেশ করে।
  3. সাকশন পাইপঃ সাম্প (sump) হতে পানি গ্রহণ করে সিলিন্ডারে পৌছায়।
  4. ডেলিভারি পাইপঃ সিলিন্ডার হতে পানি প্রয়োজনীয় উচ্চতায় ডিসচার্জ করে।
  5. সাকশন পাইপঃ সাকশন পাইপ হতে পানি সিলিন্ডারে প্রবেশ করায়।
  6. ডেলিভারি ভালভঃ সিলিন্ডার হতে পানি ডেলিভারি পাইপে পৌছায়।
Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য ত্যাগ করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন।
দয়া করে, আপনার নাম এখানে লিখুন