পাওয়ার প্লান্ট

প্রিয় পাঠক আজকে আবার আমরা পাওয়ার প্লান্ট চাকরি প্রশ্ন ও উত্তর ৪র্থ পর্বে গুরুত্বপূর্ণ কিছু জানবো। পাওয়ার প্লান্ট

১। পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচনের জন্য প্রধানত কী কী বিষয় বিবেচনা করা হয়?

উত্তর : নিম্নে পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচনের সময় বিবেচনার বিষয়গুলাে উল্লেখ করা হলাে :
১। বিদ্যুৎ চাহিদার পরিমাণ,
২। ব্যবহারের প্রকৃতি,
৩। শক্তির উৎসের প্রাচুর্যতা।

২। কোন এলাকায় চাহিদার পরিমাণ 10 মেগাওয়াটের বেশি হলে কী ধরনের পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচন করা হয়।

উত্তর : চাহিদার পরিমাণ 10 মেগাওয়াটের বেশি হলে যথাক্রমে গ্যাস, স্টিম ও পানি বিদ্যুৎ পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচন করা হয়।

৩। স্টিম, ডিজেল, পানি বিদ্যুৎ, গ্যাস এবং পারমাণবিক পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচনে প্রধান প্রধান কী কী বিষয় বিবেচনা করা হয়?

উত্তর : প্রধান প্রধান বিবেচনা বিষয়গুলো হলাে :(ক) বিদ্যুৎ চাহিদার পরিমাণ (খ) ব্যবহারের প্রকৃতি (গ) শক্তির উৎসের প্রাচুর্যতা।

৪। কোন এলাকায় চাহিদার পরিমাণ 10 মেগাওয়াটের কম হলে কী ধরনের পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচন করা হয়?

উত্তর : ঢাহিদার পরিমাণ 10 মেগাওয়াটের কম হলে ডিজেল পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচন করা হয়।




৫। লোড সেন্টারে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করার প্রধান সুবিধা কী?

উত্তর : লােড সেন্টারে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করার প্রধান সুবিধাসমূহ হচ্ছে পরিবহন, ডিস্ট্রিবিউশন খরচ অনেক কম লাগবে।

৬। অস্থায়ীভাবে ব্যবহারের জন্য কোন ধরনের প্লান্ট অধিকতর সুবিধাজনক?

উত্তর : অস্থায়ীভাবে ব্যবহারের জন্য ডিজেল প্লান্ট অধিকতর সুবিধাওনক।

৭। খরস্রোতা নদীতে কী ধরনের পাওয়ার প্লান্ট উপযুক্ত?

উত্তর : খরস্রোতা নদীতে হাইড্রে-ইলেকট্রিক পাওয়ার প্লান্ট উপযুক্ত।

৮। পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের স্থান নির্বাচনে প্রাথমিক ও চূড়ান্ত জরিপ কী কী?

উত্তর : প্রাথমিক ও চূড়ান্ত জরিপ হলাে-
(ক) হাইড্রোলজিক্যাল (খ) টপ গ্রাফিক্যাল (গ) জিওলোজিক্যাল ।

৯। নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্ল্যান্টের স্থান নির্বাচনে কী কী বিষয় বিবেচনা করতে হয়?

উত্তর : বিবেচ্য বিষয়গুলাে হলাে : (ক) মাটির কঠিনতা (খ) জ্বালানির প্রাচুর্য (গ) জনশন্য এলাকা (ঘ) যন্ত্রপাতি বা প্রথগিত সহায়তা (ঙ) পানি সরবরাহের প্রাচুর্য (চ) লোড সেন্টার বা চাহিদা।

১০। পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র জনবসতি শূন্য স্থানে স্থাপন করা হয়, কেন?

উত্তর : পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র জনবসতি শূন্য স্থানে স্থাপন করতে হয় কারণ রিয়্যাক্টরের তেজস্ক্রীয় রশ্মি নির্গত হয় এ রশ্মি কোন কারণে বাইরে আসলে মানুষ, জীবজন্তু ও পরিবশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

১১। বাষ্প পাওয়ার প্ল্যান্টের স্থান নির্বাচনের সময় বিবেচ্য বিষয়গুলাে কী কী? অথবা, একটি স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্টের স্থান নির্বাচনের জন্য কী কী বিষয় বিবেচনা করতে হয়?

উওর : স্টিম পাওয়ার প্ল্যান্টের স্থান নির্বাচনের সময় বিবেচ্য বিষয়গুলো হলাে :
১। মাটির কঠিনতা,
২। জ্বালানির প্রাচুর্যতা,
৩। যােগাযােগ ব্যবস্থা,
৪। বাজারের সুবিধা,
৫। শ্রমিকের প্রাচুর্যতা,
৬। পানির প্রাচুর্যতা,
৭। লোড সেন্টারের অবস্থান।
৮। পরিবেশ ও জনমত,
৯। নিরাপত্তা,
১০। দূষণ,
১১। জাতীয় প্রতিরক্ষা,
১২। শহর বা নগর কর্তৃপক্ষের মতামত।




১২। পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্বাচনে কী কী ফ্যাক্টর বিবেচনা করা হয়?

উত্তর : বিবেচ্য ফ্যাক্টরগুলাে হলাে :
১। জনমত ও মটিভেশন,
২। মূলধন,
৩। যন্ত্রপাতি আমদানি,
৪। মাটির কঠিনতা,
৫। ক্যাচমেন্ট এলাকা,
৬। বাৎসরিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ,
৭। পানি স্টোরেজের ব্যবস্থা,
৮। খরস্রোতা নদী,
৯। পানির হেড ইত্যাদি।

১৩। বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ কেন্দ্রের নাম কী?

উত্তর : বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নাম হচ্ছে ঘােড়াশাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র উৎপাদন ক্ষমতা 1041 মেগাওয়াট এটি অবস্থিত নরসিংদীতে। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বাের্ডের প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ২১-১২-২০১৩ তারিখে ঘােড়াশাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সকল ইউনিটের সম্মিলিত বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা।

১৪। প্ল্যান লে-আউট বলতে কী বুঝায়?

উত্তর : বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করার আগে কেন্দ্রের সমস্ত বিষয় উল্লেখপূর্বক একটি মানচিত্র অঙ্কন করাকে লে-আউট বলে।

১৫। একটি পাওয়ার প্লান্ট ডিজাইনে কী কী বিষয় বিবেচনা করা হয়?

উত্তর : পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচনের সময় নিম্নলিখিত বিষয়গুলাে বিবেচনা করা উচিৎ।
(১) বিদ্যুৎ চাহিদার পরিমাণ : কোন এলাকার চাহিদার পরিমাণ 10 মেগাওয়াটের কম হলে ডিজেল পাওয়ার প্লান্ট এবং (২) মেগাওয়াটের বেশি হলে যথাক্রমে গ্যাস টারবাইন, স্টিম ও পানি বিদ্যুৎ পাওয়ার প্লান্ট নির্বাচন করা যেতে পারে।
(৩) ব্যবহারের প্রকৃতি : বিদ্যুৎ চাহিদার প্রয়ােন্ডান অনুসারে স্থায়ী ব্যবহারের জন্য যথাক্রমে ডিজেল, গ্যাস টারবাইন, স্টিম ও হাইড্রোইলেকট্রিক পাওয়ার প্লান্ট নির্বচন করা হয়। পক্ষান্তরে অস্থায়ীভাবে ব্যবহারের জন্য ডিজেল প্লান্ট অধিকতর সুবিধা জনক। (৩) শক্তির উৎসের প্রাচুর্যতা : যে যে স্থানে যে যে শক্তির উৎস পাওয়া যায় অর্থাৎ পর্যাপ্ত পরিমাণে মজুদ আছে। সেখানে সে শক্তির উৎসকে কাজে লাগানাে যেতে পারে, এমন ধরনের পাওয়ার প্রান্ট বাছাই বা নির্বাচন করাই উত্তম।

১৬। কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের স্থান নির্বাচনে বিবেচ্য ফ্যাক্টরগুলাে কী কী?

উত্তর : বিবেচ্য ফ্যাক্টরগুলাে নিম্ননরূপঃ (ক) জ্বালানির প্রাচুর্যতা (খ) মূলধন (গ) শক্ত ভিত্তি (ঘ) যােগাযােগ ব্যবস্থা (ঙ) স্থানীয় অবস্থা (চ) দূষিতকরণ।

১৭। ডিজেল প্ল্যান্টের স্থান নির্বাচনে কী কী বিষয় বিবেচনা করা হয়?

উত্তর : বিবেচ্য বিষয়গুলাে হলাে :
(ক) লােড কেন্দ্র হতে দূরত্ব (খ) পানি সরবরাহের সুবিধা (গ) শক্ত ভিত্তি (ঘ) যােগাযােগ ব্যবস্থা (ঙ) স্থানীয় অবস্থা (চ) দূষিত করণ (ছ) বাজারের সুবিধা (জ) ভবিষ্যৎ সম্প্রসারণ।

১৮। লােড সেন্টারে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করার প্রধান সুবিধা কী?

উত্তর : লােড সেন্টারে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করার প্রধান সুবিধাসমূহ হচ্ছে ডিস্ট্রিবিউশন, পরিবহন খরচ অনেক কম লাগে।

১৯। গ্যাস টারবাইন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের স্থান নির্বাচনে বিবেচ্য ফ্যাক্টরসমূহ কী কী?

উত্তর : বিবেচ্য ফ্যাক্টরগুলাে হলো :
(ক) জ্বালানির প্রাচুর্য (খ) মাটির প্রকৃতি (গ) যােগাযােগ ব্যবস্থা (ঘ) বাজারের সুবিধা (৪) শ্রমিকের প্রাচুর্য (চ) লােড সেন্টার (ছ) নিরাপত্তা (জ) পানি সরবরাহ।

পাওয়ার প্লান্ট সম্পর্কে আরো বেশি বেশি প্রশ্ন ও উত্তর পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। প্রতিদিন একবার হলেও আমাদের সাইট ভিজিট করুন।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here