অল্টারনেটর কি

প্রিয় পাঠক আজকে আমরা অল্টারনেটর কি বা কাকে বলে এর প্রকারভেদ ইত্যাদি আরো নানা ধরনের প্রশ্ন ও উত্তর সম্পর্কে জানবো। যা চাকরি পরিক্ষায় কাজে আসবে।

১। অল্টারনেটর কি

উত্তরঃ অলটারনেটর একটি এসি জেনারেটর । যার দুটি অংশ বিদ্যমান। ফিল্ডে ডিসি সরববাহ প্রয়ােগ করে এর চুম্বক ক্ষেত্রের মধ্যে, আর্মেচার স্থাপন করা হয়। এখন ফিল্ড বা আর্মেচারকে ঘুরালে আর্মেচার পরিবাহিতে এসি ভােল্টেজ
উৎপন্ন হয়।

২। পাইলট এক্সাইটার কি? অথবা, অল্টারনেটরে পাইলট এক্সাইটারের কাজ কী?

উত্তর : ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য বড় বড় অল্টারনেটরের ফিল্ডে সেপারেটলি এক্সাইটেড ডিসি জেনারেটরের সাহায্যে এক্সাইটেশন প্রয়োগ করা হয়। একে অল্টারনেটরের মেইন এক্সাইটার বলে । মেইন এক্সাইটারের ফিল্ডকে যে সেলফ এক্সাইটেড ডিসি শাস্ট জেনারেটরের সাহায্যে সরবরাহ দেয়া হয় তাকে পাইলট এক্সাইটার বলে। পাইলট
এক্সাইটারের শ্যাফট মেইন এক্সাইটারের শ্যাফটের সাথে কাপলিং করা থাকে। এর রেটিং অল্টারনেটরের রেটিং এর 0.5% হয়ে থাকে।

৩। অল্টারনেটরকে সিনক্রোনাস জেনারেটর বলা হয় কেন?

উত্তর : অল্টারনেটরকে সিনক্রোনাস গতিবেগে (Ns = 1205, ঘুরানাে হয় বলে একে সিনক্রোনাস জেনারেটর বলে ।

৪। অল্টারনেটরের এক্সাইটেশন কাকে বলে? অথবা, এক্সাইটেশন কি?

উত্তর : অল্টারনেটরের ফিল্ডে স্থির চুম্বক ক্ষেত্র তৈরির জন্য ডিসি ভােল্টেজ প্রয়ােগ করাকে এক্সাইটেশন ভােল্টেজ বলে। এক্সাইটেশন ভােল্টেস 115V, 125V, 230V এবং 250V হয়ে থাকে। বড় বড় অল্টারনেটরের ক্ষেত্রে এই
এক্সাইটেশন ভােল্টেজ 400V এবং 600V ও হতে পারে। শান্ট DC জেনারেটরের সাহায্যে উক্ত এক্সাইটেশন ভােল্টজ অল্টারনেটর ফিল্ডে প্রয়ােগ করাই হল এক্সাইটেশনের কাজ।

৫। Main excitor-এর কাজ কী?

উত্তর : এর মূলত তিনটি কাজ আছে, যথা-
(ক) রােটর ফিল্ডকে উত্তেজিত করা,
(খ) টার্মিনাল ভােল্টেজকে নিয়ন্ত্রণ করা ও

(গ) রিয়্যাকটিভ পাওয়ার ফ্যাক্টর নিয়ন্ত্রণ করা।

৬। একটি সিনক্রোনাস মােটরকে 60 Hz উৎস হতে 200 r, p. গতিতে চলতে হলে পােল সংখ্যা কত হবে?

উত্তর : দেওয়া আছে, f = 60 Hz এবং N = 200 r. p.m 120f / 120 x 60 )
. পােল, P = e2 =

৭। Pilot (পাইলট) এক্সাইটার কোথায় ব্যবহৃত হয়?

উত্তর : বড়-বড় অল্টারনেটরের ক্ষেত্রে Pilot exciter ব্যবহৃত হয়।

৮। পাইলট এক্সাইটার কোথায় ব্যবহৃত হয়?

উত্তর : বড় বড় অল্টারনেটরের মূল এক্সাইটরের ফিল্ড এক্সাইটেশনের জন্য অপেক্ষাকৃত ছােট আকৃতির পাইলট। এক্সাইটার ব্যবহৃত হয়, যা মূল এক্সাইটার শ্যাফটের সাথে সংযুক্ত (coupling) থাকে।

৯। অল্টারনেটরে স্লিপ রিং এর কাজ কী?

উত্তর : অল্টারনেটরের সাধারণত ফিল্ড ঘুরে এবং আর্মেচার স্থির থাকে। এ ক্ষেত্রে এক্সাইটার বা ডিসি জেনারেটর হতে ঘূর্ণায়মান ফিল্ডে স্লিপ রিং এবং কার্বন ব্রাশের মাধ্যমে ডিসি সরবরাহ প্রয়ােগ করা হয়। তবে যদি আর্মেচার ঘুরে তাহলে ঘূর্ণায়মান আর্মেচার হতে স্থির লােডে ভােল্টজ প্রেরণের জন্য স্লিপ রিং ব্যবহার করা হয়।

১০। এক্সাইটারের কাজ কী?

উত্তর : এক্সাইটার অল্টারনেটরের ফিল্ডকে ডিসি সাপ্লাই দিয়ে চুম্বকক্ষেত্র তৈরি করে।

১১। কিসের উপর ভিত্তি করে অল্টারনেটরের রেটিং নির্ণয় করা হয়?

উত্তর : লােড কারেন্ট অর্থাৎ অল্টারনেটরে উদ্রত তাপ (I2R loss) বা তাপমাত্রার উপর ভিত্তি করে অল্টারনেটরের রেটিং নির্ণয় করা হয়।

১২। অল্টারনেটরের মূলত কয়টি অংশ?

উত্তর : অল্টারনেটরের মূলত তিনটি অংশ যথা-
(১) স্টেটর (Stator) বা আর্মেচার (Arrmatare)
(২) রােটর (Rotor) বা চুম্বক ক্ষেত্র (Magnetic field)। (৩) এক্সাইটার (Exciter)

১৩। অল্টারনেটরকে সর্বদা সিনক্রোনাস গতিবেগে ঘুরানাে হয় কেন?

উত্তর : সিনক্রোনাস গতিবেগ একটি স্থির গতিবেগ যা পােল এবং ফ্রিকুয়েন্সির সাথে সম্পর্কযুক্ত। সিনক্রোনাস গতিবেগ, Ns = 129f

১৪। এক্সাইটার কী?

উত্তর : যে ডিসি শান্ট জেনারেটরের সাহায্যে অল্টারনেটরের ফিল্ডে ডিসি সরবরাহ দেয়া হয় তাকে এক্সাইটার বলে। এক্সাইটার শ্যাফট এরং অল্টারনেটর শ্যাফট একই সাথে কাপলিং করা থাকে।

১৫। অল্টারনেটরে উৎপন্ন ভােল্টেজ কী কী বিষয়ের উপর নির্ভরশীল?

উত্তর : অল্টারনেটরে উৎপন্ন ভােল্টেজ নিম্নলিখিত বিষয়গুলাের উপর নির্ভরশীল-
(ক) চুম্বক ক্ষেত্রের বল রেখার উপর
(খ) আর্মেচারের পরিবাহীর সংখ্যার উপর
(গ) ফ্রিকুয়েন্সির উপর।

(ঘ) আর্মেচার ওয়াইন্ডিং ইত্যাদির উপর ।

১৬। অল্টারনেটর কোন তত্ত্বের উপর কাজ করে?

উত্তর : অল্টারনেটর ফ্যারাডের তড়িৎ চুম্বকীয় সূত্রানুসারে কাজ করে।

১৭। অল্টারনেটরের আর্মেচার কী?

উত্তর : অল্টারনেটরের যে অংশে ভোল্টেজ উৎপন্ন করা হয় তাকে আর্মেচার বলে। অধিকাংশ অল্টারনেটরের আর্মেচার স্থির রেখে ফিল্ড ঘুরানাে হয়। তবে অনেক ছােট ছােট অল্টারনেটরে এর বিপরীতটাও হতে পারে।

১৮। জেনারেটর অ্যাকশন কী?

উত্তর : অল্টারনেটরের ফিল্ডে ডিসি সরবরাহ দিয়ে চুম্বক ক্ষেত্র তৈরি করে ফিল্ড এবং আর্মেচারের মধ্যে আপেক্ষিক গতি সৃষ্টি করলে আর্মেচারে ফ্যারাডের তড়িৎ চুম্বকীয় সূত্রানুসারে এসি ভােল্টেজ উৎপন্ন হয়। এটা জেনারেটর অ্যাকশন।

১৯। অল্টারনেটর ফিল্ডে ডিসি সরবরাহ দেওয়া হয় কেন?

উত্তর : একটি স্থির চুম্বক ক্ষেত্র তৈরির জন্য অল্টারনেটর ফিল্ডে ডিসি সরবরাহ দেয়া হয়।

২০। এসি জেনারেটরে মধ্যে সর্বোচ্চ কত ভােল্টেজ উৎপন্ন করা সম্ভব?

উত্তর : এসি জেনারেটরে সর্বোচ্চ 33.2 KV (3320ov) উৎপন্ন করা সম্ভব।

২১। ডিসি জেনারেটরে সর্বোচ্চ কত ভােল্টেজ তৈরি করা যায়?

উত্তর : ডিসি জেনারেটরে সর্বোচ্চ 1500V তৈরি করা সম্ভব।

২২। স্লিপ রিং ও কম্যুটেটর এর ব্যবহার ক্ষেত্র লিখ।

উত্তর : এসি জেনারেটরে স্লিপ রিং এবং ডিসি জেনারেটরে ক্যুটেটর ব্যবহার করা হয়।

২৩। কী কারণে ডিসি জেনারেটরে বেশি ভােল্টেজ উৎপন্ন করা যায় না?

উত্তর : কমুটেশনের কারনে ডিসি জেনারেটরে বেশি ভােল্টেজ তৈরি করা সম্ভব নয়।

২৪। এমন একটি অল্টারনেটরের নাম লিখ যাতে ক্যুটেটর ও স্লিপ রিং উভয়ই ব্যবহার করা হয়?

উত্তর : গ্যাসােলিন অল্টারনেটর।

২৫। টার্বো-অল্টারনেটর কাকে বলে?

উত্তর : যে সকল অল্টারনেটরের প্রাইম মুভার হিসাবে টারবাইন ব্যবহার করা হয়, তাদেরকে টার্বো অল্টারনেটর বলে। এদের গতিবেগ সর্বদা বেশি হয়।

২৬। এক্সাইটারের প্রয়ােজনীয়তা কী?

উত্তর : অল্টারনেটরে তিনটি প্রধান কাজ সম্পন্ন করতে এক্সাইটার প্রয়ােজন হয়। কাজগুলো হচ্ছে- (ক) রােটর ফিল্ডকে উত্তেজিত করা (খ) টার্মিনাল ভােল্টেজ্ঞা নিয়ন্ত্রণ করা এবং (গ) রিয়্যাকটিভ পাওয়ার ফ্যাক্টর নিয়ন্ত্রণ করা।

২৭। প্রাইম মুভার কী?

উত্তর : বৈদ্যুতিক শক্তি উৎপাদনের নিমিত্তে অল্টারনেটরকে সর্বদা একটি নির্দিষ্ট গতিবেগে ঘােরানাের জন্য যে যন্ত্র ব্যবহৃত হয়, তাকে প্রাইম মুভার বলে। সচরাচর ডিজেল ইঞ্জিন অথবা, স্টিম, গ্যাস বা হাইড্রো-টারবাইন প্রাইম মুভারে হিসেবে ব্যবহার হয়ে থাকে।

২৮। অল্টারনেটের ব্যবহৃত প্রাইম মুভারের নামগুলাে লিখ।

উত্তর : অল্টারনেটরে ব্যবহৃত প্রাইম মুভারগুলো হচ্ছে—
(i) ডিজেল ইঞ্জিন (Diesel engine),
(i) স্টিম টারবাইন (Steam trubine],
(ii) গ্যাস টারবাইন (Gas turbine),

(iv) হাইড্রো টারবাইন (Hydro turbine)।

২৯। জেনারেটরের শ্রেণিবিভাগ দেখাও।

উত্তর : প্রাইম মুভার অনুযায়ী এ.সি, জেনারেটর প্রধানত চার প্রকার। যথা : এ.সি, জেনারেটর প্রধানত চার প্রকার। যথা :
(১) স্টিম টারবাে জেনারেটর (Steam turbo-generator)।
(২) গ্যাস টারবে জেনারেটর (Gas turbo-generator),
(৩) হাইড্রো জেনারেটর (Hydro generator),
(৪) ডিজেল-চালিত ইন্ডাসট্রিয়্যাল স্ট্যান্ডবাই জেনারেটর (Diesel-operated industrial standby generator)।

৩০। অল্টরনেটর মূলত কী ধরনের জেনারেটর?

উত্তর : অল্টারনেটর মূলত একটি এসি জেনারেটর।

৩১। এসি ও ডিসি জেনারেটর প্রাথমিক অবস্থায় কি ধরনের ভােল্টেজ উৎপন্ন করে?

উত্তর : এসি ও ডিসি জেনারেটর প্রাথমিক অবস্থায় এসি (Alternating) ভোল্টেজই উৎপন্ন করে।

৩২। কম্যুটেটর অর্থ কী?

উত্তর : কম্যুটেটর (Commutator) অর্থ হল দিক পরিবর্তন করা। উহা ডিসি জেনারেটরে ব্যবহৃত হয়।

৩৩। স্লিপ রিং কোথায় ব্যবহৃত হয়?

উত্তর : এসি জেনারেটর বা অল্টারনেটরে স্লিপ রিং ব্যবহৃত হয়।

৩৪। অল্টারনেটরে কাকে ঘুরানাে হয়?

উত্তর : বড় বড় অল্টারনেটরে ফিল্ডকে ঘুরানাে হয় এবং আর্মেচার স্থির থাকে এবং ছোট ছােট অল্টারনেটরের বেলায় বিপরীত অবস্থা ঘটে।

৩৫। অল্টারনেটরের আর্মেচারকে ঘুরানাে হয় না কেন?

উত্তর : অল্টারনেটরের আর্মেচারকে ঘুরালে অনেক অসুবিধার সৃষ্টি হতে পরে বিধায় ফিল্ডকে ঘুরানাে হয়।

৩৬। অল্টারনেটরে স্টেটর ও রােটর কী কী?

উত্তর : অল্টারনেটরে ফিল্ডকে রােটর এবং আর্মেচারকে স্টেটর বলে।

৩৭। অল্টারনেটরের ফিল্ডকে উত্তেজিত করতে কি ব্যবহৃত হয়?

উত্তর : অল্টারনেটরের হিম্ভকে উত্তেজিত করাতে ডিসি শান্ট জেনারেটর ব্যবহৃত হয়। একে এক্সাইটার বলে ।

৩৮। এক্সাইটার হতে কারেন্ট কিসের মাধ্যমে ফিল্ড কয়েলে যায়?

উত্তর : এক্সাইটার হতে কারেন্ট পাতলা ব্রাশও লিপ রিং হয়ে ফিল্ড কয়েলে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here