প্রিয় পাঠক আজকে আমরা অল্টারনেটর ইএমএফ সমীকরণ সম্পর্কে জানবো।

যে ক্রিয়ার ফলে জেনারেটরে ভোল্টেজ আবিষ্ট হয় তাকে জেনারেটর অ্যাকশন বলে। জেনারেটর অ্যাকশন তথা জেনারেটরের মূলনীতি হচ্ছে যদি এক প্যাচ বিশিষ্ট তারের কয়েলে প্রতি সেকেন্ডে ১০^৮ mexwell ফ্লাক্স কর্তন করে, তাহলে উক্ত কয়েলে ভোল্ট ই.এম.এফ উৎপন্ন হবে। ই.এম.এফ উৎপাদন প্রধানত তিনটি বিষয়ের উপর নির্ভরশীল। যথা– চুম্বক বলরেখা, পরিবাহী এবং এদের উভয়ের মধ্যে সম্বন্ধ সূচক গতি। ফ্যারাডের সূত্র অনুসারে এ তিনটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে অল্টারনেটরে ই.এম.এফ উৎপন্ন হয়।

ই.এম.এফ সমীকরণ ব্যাখ্যা

যে সমীকরণের সাহায্যে অল্টারনেটরের আর্মেচারে উৎপন্ন ভোল্টেজের প্রতিপাদন করা হয়তাকে অল্টারনেটরের ই.এম.এফ সমীকরণ বলে। উক্ত সমীকরণ থেকে দেখা যায় যে অল্টারনেটরে উৎপন্ন ভোল্টেজ নিম্নলিখিত বিষয়ের উপর নির্ভরশীল–

  1. অল্টারনেটরের প্রতি ফেজের উৎপন্ন ফ্লাক্স
  2. অল্টারন্টরের ফ্রিকুয়েন্সি
  3. অল্টারনেটরের প্রতিফেজের টার্ন সংখ্যা
  4. আর্মেচার ওয়াইন্ডিং এর পিচ ফ্যাক্টর
  5. আর্মেচার ওয়াইন্ডিং এর ডিস্ট্রিবিউশন ফ্যাক্টর
  6. অল্টারনেটর আর্মেচারের পরিবাহীর সংখ্যা।

ডিসি জেনারেটরে মোট চুম্বকীয় ফ্লাক্স কর্তনের উপর নির্ভর করে emf উৎপন্ন হয়। কিন্তু অল্টারনেটরে ফ্লাক্স কর্তনের হার ছাড়াও মোট ফ্লাক্স ও কন্ডাকটর বিভাজন প্রক্রিয়ার উপর নির্ভর করে ই.এম.এফ উৎপন্ন হয়।


অল্টারনেটরের ই.এম.এফ সমীকরণ নির্ণয় করার পদ্ধতি

ধরি,

Z= পরিবাহীর সংখ্যা অথবা কয়েল সাইড ইন সিরিজ/ফেজ

Z=2T; এখানে T প্রতি ফে কয়েল বা টার্ন সংখ্যা(প্রতি কয়েল বা টার্নের দুটি করে সাইড থাকে)

  • P=পোল সংখ্যা
  • ɸ=প্রতি পোলে ফাক্স, ওয়েবার
  • Kd=ডিস্ট্রিবিউশন ফ্যাক্টর
  • Kd= (sin m β/2)÷(m sinβ/2)
  • Kc= পিচ ফ্যাক্টর
  • Kd= cos a/2
  • Kf= ফরম ফ্যাক্টর= 11.1
  • N= রোটর আর পি এম

প্রতি ঘূর্ণনে প্রতি পরিবাহীতে ফ্লাক্স কর্তন= ɸ×P ওয়েবার dɸ= ɸP

      এবং dt= 60/Nসেকেন্ড

প্রতি পরিবাহীতে গড় উৎপাদিত ইএমএফ

=dɸ/dt = ɸPN/60

            =(ɸP/60)×(120f/P) [ N=120f/P]

            =2ɸƒ volt

Z সংখ্যক পরিবাহীতে প্রতি ফেজে গড় উৎপাদিত ই এম এফ =2ɸƒZ volt

                 =4ɸƒT volt

প্রতি উৎপাদিত ই এম এফ R.M.S মান

                         =11.1×140ɸƒT volt

                         =4.44ɸƒT volt

ডিস্ট্রিবিউশন ফ্যাক্টর ও পিচ ফ্যাক্টর বিবেচনা করে প্রকৃত উৎপাদিত ই.এম.এফ/Phase=4.44kpKdɸƒT ভোল্ট।

অল্টারনেটরর স্টারে সংযোগ করার সুবিধা

  1. একই পরিমাণ লাইন ভোল্টেজ পাওয়ার জন্য ডেল্টা সংযোগের তুলনায় স্টার সংযুক্ত অল্টারেটরের প্রতিফেজে ৫৭.৭% টার্ন সংখ্যা হলেই চলে।
  2. ফেজ কয়েলে ইনসুলেশন কম লাগে।
  3. থ্রি-ফেজ লোডের সাথে সিঙ্গেল ফেজ লোড পরিচালনা করা যায়।
  4. ডেল্টা সংযোগ অল্টারনেটরের কয়েল তিনটি বদ্ধ পথ তৈরি করে বিধায় প্রতিফেজের তৃতীয় হারমোনিক্স ভোল্টেজের লব্ধি ভোল্টেজের জন্য সারকুলেটিং কারেন্ট প্রবাহিত হয় এবং অল্টারনেটর গরম হয়। অথচ স্টার সংযুক্ত অল্টারনেটরের কয়েল তিনটি বদ্ধ পথ তৈরি করে না, বিধায় কোন সারকুলেটিং কারেন্ট প্রবাহিত হয় না।

এইছিল অল্টারনেটর ইএমএফ সমীকরণ কোথাও বুঝতে সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

Facebook Comments